Tuesday , December 7 2021
Breaking News
Home / খবর / কাথুলী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মিজানুর রহমান রানার মনোনয়নপত্র দাখিল

কাথুলী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মিজানুর রহমান রানার মনোনয়নপত্র দাখিল

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম  ঃ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ১ নং কাথুলী ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান,আওয়ামীলীগের বর্ষিয়ান নেতা,উপজেলা ও জেলা নেতৃবৃন্দের আস্থাভাজন নেতা, যিনি দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে ত্যাগ তিতীক্ষার মধ্য দিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত করে রেখেছেন সেই জনপ্রিয় নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মেহেরপুর জেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও মিজানুর রহমান রানা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগকে রক্ষা করতে তিনি জনগণের আশা আকাঙ্খার প্রতীক হিসাবে ইতোমধ্যেই তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় নেতা কর্মী সমর্থকদের প্রত্যাশা পূরণে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। আজ শনিবার দুপুরের দিকে গাংনী উপজেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুল আজিজের কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দেন। কাথুলী ইউনিয়নের নওয়াপাড়া, মাইলমারী ধলা,কাথুলী, গাড়াবাড়ীয়া গ্রামের লোকজনের সাথে আলাপকালে মিজানুর রহমানের ব্যাপক জনপ্রিয়তার কথা জানা গেছে।তিনি ইতোমধ্যেই নির্বাচনী এলাকার মানষের সাথে কুশল বিনিময় করছেন। এসময় জনপ্রিয় নেতা মিজানুর রহমান রানার সাথে অসংখ্য নেতা-কর্মী,সমর্থক , শুভাকাঙ্খী উপস্থিত ছিলেন। মিজানুর রহমানে রানার রাজনেতিক কার্যালয়ে প্রতিদিনই সকাল থেকে মধ্য রাত অবধি লোকে লোকারন্য থাকতে দেখা গেছ্।ে যেন গণজোয়ার সুষ্টি হয়েছে। ইউনিয়নের সব কয়টি গ্রামে মিজানুর রহমানের জয়জয়াকার অবস্থা।
গাড়াবাড়ীয়া গ্রামের একাধিক নেতা কর্মী সমর্থক জানান, কাথূলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ঘাটি।দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় তৃণমূল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। কর্মীরা জানায়,আমাদের ্ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের পরাজয় হোক। এটা আমরা মেনে নিতে পারিনা। সে কারনে মিজানুর রহমান রানা নির্বাচন করতে না চাইলেও আমরা জনমত যাচাই করে রানাকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ঘোষনা করেছি। কোনরকম যাচাই বাছাই না করে একজন অপরিচিত ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। অনেকেই সেই প্রার্থীকে চেনেন না। রাজনৈতিক কার্যক্রমে যার কোন রকম অবদান নেই। তার সাথে কোন নেতা কর্মী সমর্থক নেই।আমাদের দাবী , জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ইউনিয়নবাসীর কাছে এসে তাদের জনমত যাচাই করে দেখুন প্রকৃত অর্থে যোগ্য প্রার্থী কে! এলাকার নারী পুরুষের দাবি , এখনও সময় আছে দলীয় প্রার্থী পরিবর্তন করে মিজানুর রহমান রানাকে মনোনয়ন দেয়া হোক।আমি শাসক হতে চাইনি, সেবক হতে চাই্ ।ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা পূরণে রাস্তা,ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নানা সমস্যা, সম্ভাবনা নিয়ে কাজ করতে চাই। আমি সকলের সহযোগিতা ও দোয়া চাই।রানা বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জনগণ যদি তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে তাহলে আমি ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করবো।রানা বলেন আমি জনগণের প্রত্যাশা পূরণে নির্বাচনে নেমেছি। আবারো নির্বাচিত হলে ইউনিয়নে অসমাপ্ত কাজগুলি শেষ করা হবে। ইনসাল্লাহ।

 

Check Also

কুয়েটের ৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

কুয়েটের ৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

বিএম রাকিব হাসান, খুলনা ব্যুরোঃ- খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ৯ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *