Wednesday , December 8 2021
Breaking News
Home / মেহেরপুর / গাংনীর কাজীপুরে বিজিবি সদস্যর বাড়ীতে স্বর্ণালংকার চুরির অভিযোগ চোরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও পুলিশ ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষোভ

গাংনীর কাজীপুরে বিজিবি সদস্যর বাড়ীতে স্বর্ণালংকার চুরির অভিযোগ চোরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও পুলিশ ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষোভ

downloadআমিরুল ইসলাম অল্ডাম/kddnews মেহেরপুরের গাংনীর কাজীপুর গ্রামে বিজিবি সদস্যের বাড়ীতে গভীররাতে ঘরে ঢুকে স্বর্ণালংকার চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। চিহ্নিত চোরের বিরুদ্ধে প্রথমত স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পে ও পরবর্তীতে গাংনী থানায় লিখিত অভিযোগ করা হলে পুলিশ প্রশাসন ঘটনার ৩ সপ্তাহ পরেও কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় অভিযোগকারী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, উপজেলার কাজীপুর মিলিটারী পাড়ার বিজিবি সদস্য (বর্তমানে কর্মরত) রুবেল ইসলামের বাড়ীতে গত ১৭ আগষ্ট দিবাগত মধ্যরাতে (আনুমানিক ১-৩০ মিনিট) পূর্বপরিকল্পিতভাবে প্রতিবেশী রফিকুল ইসলামের ছেলে সম্প্রতি প্রবাস ফেরত মহিবুল ইসলাম ঘরের গেট খোলা থাকায় প্রবেশ করে প্রায় ২ লক্ষ টাকা মুল্যের সোনার চেইন, চুড়ি, নেকলেচ চুরি করে। ঘরের মধ্যে আসবাবপত্রের শব্দে জেগে উঠে বিজিবি সদস্য’র স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা পপি । এসময় চোর চোর বলে চিৎকার দিলে চোর মহিবুল ইসলাম ধরা পড়ার ভয়ে সিড়ি দিয়ে বাড়ীর ছাদে উঠে যায়। পরে সেখান থেকে লাফ দিয়ে পালাবার চেষ্টা করলে মহিবুল ইসলাম পায়ে মারাত্মকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রতিবেশী মন্টু মিলিটারী কৌশলে চিকিৎসার নামে প্রথমে কুষ্টিয়া ও পরে রাজশাহী হাসপাতালে পাঠায়।
ঘটনার সুরাহা না হওয়ায় রাজিয়া সুলতানা পপি নিরুপায় হয়ে স্থানীয় বিজিবি ক্যাম্পে বিষয়টি অবহিত করেন। পাশাপাশি স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্প ভবানীপুর ক্যাম্পে অভিযোগ করেও কোন কাজ হয়নি। অবশেষে ঘটনার পরদিন ১৮ আগ®ট তারিখে বিজিবি সদস্য’র স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা পপি বাদি হয়ে গাংনী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
বাদিনী রাজিয়া সুলতানা জানান, আমি চোর সনাক্ত করে অভিযোগ দিলেও পুলিশ বিষয়টি আমলে নিচ্ছে না। আসামী চিকিৎসার নামে আত্মগোপন করে থাকলেও অজ্ঞাত কারনে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। বর্তমানে আমি সামাজিক নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দুই শিশু সন্তান নিয়ে বসবাস করছি।

পুলিশ ব্যবস্থা না নেয়ায়

গ্রামের মাতব্বরদের কাছে বিষয়টি অবহিত করলেও নানাভাবে নানা অযুহাতে বিচার বিলম্বিত করছে। উল্টো আমার নামেই নানা অপবাদ রটানো হচ্ছে।
রাজিয়া সুলতানা আরও জানায়, বিবাদী মহিবুল ইসলামের বাবা রফিকুল ইসলাম ও তার পরিবার ঘটনার সত্যতা মেনে নিয়ে আপোষ করার প্রস্তাব দিয়েছে। এবং মামলা প্রত্যাহার করে নিতে বলছে। আমি আগেই মামলা তুলে নেব না। সামাজিক ভাবে অথবা পুলিশ প্রশাসন ব্যবস্থা নিলে আমি অভিযোগ প্রত্যাহারের কথা ভেবে দেখবো। পরস্পর শুনতে পাচ্ছি, সে আমার বিরুদ্ধে নানা অপবাদ দিয়ে এবং বড় ধরণের ক্ষতি করে অল্প দিনের মধ্যেই আবার বিদেশে পালিয়ে যাবে।
অন্যদিকে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে বিবাদী মহিবুলের মা কিছুই জানেন না বলে জানান। পরবর্তীতে প্রতিবেশী মহল্লার মাতব্বর মন্টু মিলিটারীর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, চুরির ঘটনা সঠিক নয়। তারা কোন হৈ চৈ বা চি]কার করেনি। মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে। ঐ পরিবারের বিরুদ্ধে অনেক বদনাম রয়েছে। গভীর রাতে বিবাদী মহিবুলের পা ভেঙ্গেছে কিভাবে এমন প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান অবসরপ্রাপ্ত মন্টু মিলিটারী । তিনি বলেন, মহিবুল ইসলাম বর্তমানে রাজশাহীতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সে সুস্থ হলেই সামাজিকভাবে বসে মিমাংসা করা হবে।
এবাপারে গাংনী থানা অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমান জানান, চুরির বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

 

Check Also

মেহেরপুরে গলায় খাবার আটকে মায়ের কোলে শিশুর মৃত্যু

মেহেরপুরে গলায় খাবার আটকে মায়ের কোলে শিশুর মৃত্যু

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম : ঃমেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজীপুর ইউনিয়নের হাড়াভাঙ্গা গ্রামে গলায় খাবার আটকে আলিফ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *