Sunday , June 20 2021
Breaking News
Home / খবর / ভোগান্তি’কে সঙ্গী করে ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রা

ভোগান্তি’কে সঙ্গী করে ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রা

ভোগান্তি'কে সঙ্গী করে ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রা

করোনা সংক্রমণ কমাতে চলমান কঠোর বিধিনিষেধে দূরপাল্লার পরিবহণ না চালানো ও দিনের বেলায় ফেরি চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত থাকলেও ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখো মানুষের স্রোত আটকানো যাচ্ছে না। গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে ভোগান্তি টেনে ও অতিরিক্ত ভাড়া গুণে বাস মাইক্রোবাসে বিভিন্ন জেলার উদ্দেশে ছুটছে মানুষ ।
ফেরিঘাটে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড়
গতকাল সোমবার রাজধানীর গাবতলী, কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, শ্যামলী বাস টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, হাতে ব্যাগ নিয়ে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়েছে মানুষ। সিএনজি, ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেল ও মাইক্রোবাসে যে যেভাবে পারছেন ঢাকা ছাড়ছেন। আন্ত:জেলা পরিবহণ বন্ধ থাকলেও গাবতলী পুলিশ বক্সের আগে কয়েকটি বাসকে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত যাত্রী নিতে দেখা যায়।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে পরিবহণ চালানো কিংবা জেলার বাইরে না যাওয়ার নিয়মকে তোয়াক্কা না করে এসব গাড়ি চলছে।

ডি লিংক, ঠিকানা পরিবহণের দুটো বাস যাত্রীপ্রতি ৩০০ টাকা করে ভাড়া নিয়ে গাবতলী থেকে পাটুরিয়া যাচ্ছে জানিয়ে ঠিকানা বাসের এক হেলপার বলেন, এখন ফেরি বন্ধ; তবে রাতের দিকে ফেরি খুলে দেয়। আমিনবাজার থেকে উত্তরবঙ্গগামী বাসও ছাড়ে রাতে। এ কারণে যাত্রীদের ভিড় আছে। এদিকে সিএনজি, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন ছোট ও হালকা যানবাহনে সাভার, বাইপাইল ও পাটুরিয়া যাচ্ছেন যাত্রীরা। এক্ষেত্রে তিন থেকে পাঁচগুণ বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে তাদের। বেশিরভাগ মানুষই মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি। উপেক্ষিত হচ্ছে সামাজিক দূরত্বও। ব্যবসায়ী নাজমুল হাসান ব্যাগ গুছিয়ে ছুটছেন আমিনবাজারের উদ্দেশে। তার গন্তব্য যশোর। গাড়ি আমিনবাজার থেকে ছাড়বে শুনে তিনি গাবতলী থেকে ৫০ টাকায় ভ্যান ভাড়া করেছেন। তিনি বলেন, আমিনবাজার থেকে একটা ব্যবস্থা করবো, বাস যদি না পাই তাহলে আবার ফিরে আসব। যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শত ভোগান্তি নিয়ে তারা গ্রামে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ করতে চান। মানসুর ও আবেদিন ঢাকার একটি পলিটেকনিক কলেজে পড়েন। লকডাউন, তীব্র রোদ উপেক্ষা করে দুই বন্ধু যাত্রা শুরু করেছেন। তাদের গন্তব্য পাবনার আরামবাড়িয়া। রাজধানীর তেজগাঁও থেকে গাবতলীর যাত্রা সুখের হলেও এরপর শুরু অনিশ্চিত যাত্রা আর পদে পদে ভোগান্তি। আবেদিন বলেন, ঢাকার মেসে ঈদ কীভাবে করব? ঈদ তো বছরে দুবার আসে। কষ্ট হলেও বাড়িতে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ করব।
ফেরিঘাটে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড়
গোপনে চলছে দূরপাল্লার বাস : সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে প্রশাসন ম্যানেজ করে দূরপাল্লার বাস চলাচল করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চালক বলেন, বাস রাতে ছাড়ে। আমিনবাজার, সাভারসহ বিভিন্ন জায়গা থেকেই বাস জেলার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আবার যাত্রীরা আরিচা, পাটুরিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত কষ্ট করে যায়। ফেরি পার হলে অন্য জেলার বাস পাওয়া যায়।

যাত্রীরা বলছেন, ভেঙে ভেঙে যেতে তাদের বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে। পাবনার যাত্রী মানসুর বলেন, এক জায়গায় কথা হয়েছে। বলছে রাতে গাড়ি ছাড়বে আমিনবাজার থেকে। ভাড়া ২ হাজার টাকা বলছে। ভাবছি ভেঙে ভেঙে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাড়ে যাব। মোটরসাইকেলে ব্রিজ পাড় হয়ে ওপার থেকে আবার গাড়ি, অটোরিকশা যা পাই তা দিয়ে বাড়ি চলে যাব। সেতু পাড় করে দিতে মোটরসাইকেলে ৪০০ টাকা দিতে হবে শুনেছি। এভাবে দেখা যাচ্ছে বাড়ি যেতে এ হাজার থেকে পনেরশ টাকা খরচ হবে।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলগামী যাত্রীরা ফেরিতে পদ্মা পাড়ি দিয়ে রাজবাড়ীর বাসে ফরিদপুরের সীমানা সাইনবোর্ড পর্যন্ত, ফরিদপুর থেকে কামারখালী ব্রিজ পর্যন্ত, মাগুরার বাসে সীমাখালী হয়ে যশোর, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

জানতে চাইলে কর্মরত বিআরটিএ’র ম্যাজিস্ট্রেট ফখরুল ইসলাম বলেন, সরকারের নির্দেশনা বলবত রাখতে আমরা কাজ করছি। বিভিন্ন গাড়ি জরিমানা করেছি। কিন্তু জনসাধারণের সহযোগিতা পাচ্ছি না। এ সময় যদি সবাই সহযোগিতা না করে তাহলে করোনা পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে।

গাবতলী এলাকায় কর্মরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্য প্রিয়াংকর রায় বলেন,পিকআপ ভ্যান, গাড়িতে করে অনেকেই ঢাকা ছাড়ার চেষ্টা করছেন। আমরা তাদের বুঝিয়ে-শুনিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দিচ্ছি। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি, তারপরও অনেকেই আমাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢাকা ছাড়ছেন।
ভোগান্তি'কে সঙ্গী করে ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রা
মানুষের ভিড়ে ফেরিতে ঠাঁই হচ্ছে না জরুরি সেবার গাড়ির : ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপে জরুরি সেবায় নিযয়াজিত গাড়ি ফেরিতে উঠতে হিমসিম খাচ্ছে। মোট ১৬টি ফেরির মধ্যে এখন চলছে নয়টি। ফেরিগুলো ঘাটে ভিড়লেই শত শত যাত্রী উঠে পড়ছেন তাতে। ফলে ফেরিতে দুই-একটির বেশি জরুরি গাড়ির জায়গা হচ্ছে না। বাধ্য হয়ে শত শত যাত্রী আর দুই-একটি জরুরি সেবার গাড়ি নিয়েই পদ্মা পারি দিচ্ছে ফেরিগুলো। গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এমন চিত্র দেখা যায় দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রবেশদ্বার মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের পাটুরিয়া ফেরি ঘাট এলাকায়। সকাল থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত নয়টি ফেরি পাটুরিয়া ঘাট থেকে দৌলতদিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে। কোনো ফেরিতে স্বাস্থ্যবিধির কোনো বালাই ছিল না। মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই পার হচ্ছেন মানুষ। নয়টি ফেরি চলাচল করতে দেখা গেলেও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন করপোরেশন (বিআইডবিস্নউটিসি) পাটুরিয়া ঘাট শাখার বাণিজ্য বিভাগের সহকারী ম্যানেজার মহিউদ্দিন রাসেল বলেন, এমনিতে দিনের বেলায় ফেরি চলাচল বন্ধ, তবে রোগী কিংবা লাশবাহী গাড়ি থাকলে দুই-একটি ফেরি চলাচল করে। জরুরি সেবায় নিয়োজিত গাড়িগুলো ফেরিতে তুলতে গেলে হুমড়ি খেয়ে মানুষ ফেরিতে উঠে পড়ছেন আর এতে করে অনেক সময় একটি অথবা দু’টি গাড়ি দিয়েই ফেরিগুলো দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যাচ্ছে। এদিকে ঈদে ঘুরমুখো যাত্রীরা ঘাটে দুর্ভোগে পড়েছেন। হঠাৎ ফেরি বন্ধের ঘোষণায় ঘাট এলাকায় ছোট গাড়ির লম্বা লাইন তৈরি হয়েছে। ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন আটকে থাকা গাড়ির চালক ও সাধারণ যাত্রীরা।

এরমধ্যে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরি যান পারাপারে একটি ফেরি পাটুরিয়া ঘাটে ভেড়াতে গেলে যাত্রীরা দেঁৗড়ে সেখানে ওঠার চেষ্টা করেন। ঘাট পারাপারে মরিয়া হয়ে পড়েছেন যাত্রীরা। ঈদের ঘুরমুখো যাত্রীদের মানবিকতার কথা বিবেচনা করে সব রুটে ফেরি চলাচলের অনুমতি দিয়েছে নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়।

দু’দিন বন্ধ রাখার পর গতকাল সোমবার পাটুরিয়া- দৌলতদিয়া রুটে, শিমুলিয়া-বাংলাবাজার, মাওয়া ঘাটে ফেরি চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘাটে ঈদে ঘুরমুখো যাত্রীরা অনেক দুর্ভোগে পড়েছেন। এসব মানুষের দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করেই ফেরি চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। মূলত মানবিক বিষয় চিন্তা করেই ফেরি চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। যেসব মানুষ ঘাটে পৌঁছে গেছেন তারা যাবেন কোথায়? ঈদ পর্যন্ত ফেরি চলাচল করবে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ঈদ পর্যন্ত সব রুটেই ফেরি চলবে প্রাথমিকভাবে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরবর্তী কথা বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

Check Also

মোল্লাহাটে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

মোল্লাহাটে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

মিয়া পারভেজ আলম (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ঃ “শেখ হাসিনার বার্তা, নারী পুরুষ সমতা” ও “নারী পুরুষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *