Thursday , December 2 2021
Breaking News
Home / খবর / গাংনীর নবীনপুর সরকারী প্রাঃ বিঃ নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের কাজ কবে নাগাদ শেষ হবে

গাংনীর নবীনপুর সরকারী প্রাঃ বিঃ নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের কাজ কবে নাগাদ শেষ হবে

School pic1নবীনপুর সরকারী প্রাঃ বিঃ

স্টাফরিপোটার : গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের নবীনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের কাজ কবে নাগাদ শেষ হবে কেউ জানে না। দেড় বছর অতিবাহিত হলেও নির্মাণ দপ্তরের গাফিলতির কারণে শিশু শিক্ষার্থীরা রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করছে।তদন্ত কমিটির তদন্ত রিপোর্টের ফাইল ফিতায় বাঁধা হয়ে পড়ে রয়েছে।
তৎকালীন সময়ে তদন্ত কমিটির প্রধান তত্বাবধায়কের নির্বাহী প্রকৌশলী এলজিইডি যশোর অঞ্চলের মোঃ শফিকুল আলম,নির্বাহী প্রকৌশলী তত্বাবধায়কের কার্যালয় যশোর অঞ্চলের বিজয় কুমার দাস, চীফ এ্যাডিশনাল ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম আজাদ ধসে পড়া নবীনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিদর্শন করছেন।
মেহেরপুর এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী আজিমউদ্দীন সরদার,গাংনী উপজেলা প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা মিললেও অদ্যাবধি কোন প্রতিকার হয়নি।সেসময় স’ানীয়দের তোপের মুখে পড়েন তদন্ত কমিটির লোকজন। পরে স’ানীয়দের কথা শুনে সিডিউল অনুযায়ী কাজ করার আশ্বাস দেন তারা এবং কাজ স’গিত করেন।।

জানাগেছে, পিইডিপি-৩ প্রকল্পের ৬৩ লাখ,৫২ হাজার,৫শ’ টাকা ব্যয়ে নির্মান কাজ করেছেন তামান্না এন্টার প্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ওই বিল্ডিং নির্মাণের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকার মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক-ও সাবঃইঞ্জিনিয়ার সামসুল হকের যোগসাজসে কাজে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে মন্তব্য করে তাদের শাস্তির দাবীও করেন এলাকাবাসী। গাংনী উপজেলা প্রকৌশলী অফিসের এস,ও সামসুল হক কাজ দেখভালের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কাছে মোটা অংকের টাকা নিয়ে কাজে ব্যাপক অনিয়ম থাকা সত্বেও বহাল তবিয়তে কাজ করেছেন বলে জানান স’ানীরা। স’ানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে,কাজে অনিয়মের অভিযোগ তুল্লে তাদের চাঁদাবাজি মামলা দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে কাজ করেছেন,ফলে কেউ ভয়ে মুখ খুলতে পারেনি।

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সুমন আলী জানান,ঠিকাদার ও সাবঃইঞ্জিনিয়ার সামসুল হকের দুর্নীতির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে।
এ ব্যাপারে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান তামান্না এন্টার প্রাইজের সত্বাধীকার এমএ খালেক জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। সহযোগি ঠিকাদার মুনায়েম হোসেন মুলাক কাজটি দেখা শোনা করেছেন।
গাংনী উপজেলা প্রকৌশলী কাজী সেকেন্দার আলী জানান, এই কাজটি একটি প্যাকেজে হয়েছে। অল্প দিনের মধ্যে নতুন ভাবে টেন্ডারের মাধ্যমে ভাঙ্গা বিল্ডিং পুরোপুরি ভেঙ্গে নতুন করে ভবনের কাজ শুরু হবে। উপজেলা নির্বাহী বিষ্ণুপদ পাল জানান,উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে আলাপ করে অল্প দিনের মধ্যে বিদ্যালয়ের কাজ শুরু কর হবে।

 

Check Also

মেহেরপুরে শত্রæতাবশতঃ ৪ শ’কলাগাছ কর্তন

মেহেরপুরে শত্রæতাবশতঃ ৪ শ’কলাগাছ কর্তন

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম : মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর মাঠে শত্রæতা কওে ৪ শতাধিক কলাগাছ কেটে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *