Saturday , May 8 2021
Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মায়ানমারকে যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা হত্যাকান্ড বন্ধ করুন

মায়ানমারকে যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা হত্যাকান্ড বন্ধ করুন

 

juktorasto

Kbdnews ডেস্ক : মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর চলমান হত্যাকান্ড ও সহিংসতা বন্ধের জন্য দেশটির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেঙ্ টিলারসন। গত বৃহস্পতিবার ২৬ অক্টোবর মায়ানমারের সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং হ্লেইংকে ফোন করে এ আহ্বান জানান টিলারসন।

অপরদিকে মায়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির নির্লিপ্ততার কঠোর সমালোচনা করেছেন মায়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা তদন্তে নিয়োজিত জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াংহি লি।

এদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র হেদার নোয়ের্ত এক বিবৃতিতে এ ফোনালাপের কথা জানিয়েছেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান বর্বরতা ও মানবিক সংকটে উদ্বেগ প্রকাশ করেন টিলারসন। রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা বন্ধে সরকারকে সহায়তা করার জন্য তিনি মায়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান। পাশাপাশি বর্বর সহিংসতার কারণে যেসব রোহিঙ্গা মুসলমান প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে তাদেরকে নিরাপদে নিজেদের ঘর-বাড়িতে ফেরার সুযোগ দেয়ার কথা বলেছেন।

মার্কিন কর্মকর্তারা রোহিঙ্গা ইস্যুতে উদ্বেগ প্রকাশ করলেও মায়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে অস্বীকার করে আসছেন। তবে গত সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এক বিবৃতিতে বলেছে, রাখাইনের অবনতিশীল পরিস্থিতিতে মায়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করছে ওয়াশিংটন।

বিভিন্ন খবর থেকে জানা যাচ্ছে, রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের গ্রামগুলো প্রায় সবই পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে এবং মায়ানমারের সেনা ও উগ্রবাদী বৌদ্ধদের হামলা ও নির্যাতনের মুখে এ পর্যন্ত ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে কোনোরকম জীবন নিয়ে পালিয়ে গেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার নুয়ার্ট বলেন, রাখাইন রাজ্যে সংঘাত বন্ধে এবং রোহিঙ্গাদের নিরাপদে তাদের ঘর-বাড়িতে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে মায়ানমার সরকারকে সহযোগিতা করতে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীকে অনুরোধ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেঙ্ টিলারসন।

গত আগস্ট মাসে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মায়ানমার সেনাবাহিনী বর্বর অভিযান শুরু করলে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। এখনো রোহিঙ্গারা আসছে। জাতিসংঘের হিসাবমতে, এ পর্যন্ত ৫ লাখ ৮০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এ সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে মায়ানমারের প্রতি বিশ্বসম্প্রদায় আহ্বান জানালেও তাতে কান দেয়নি তারা। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে ভয়াবহ এই নির্যাতনকে ‘জাতিগত নিধন’ বলে চিহ্নিত করেছে জাতিসংঘ।

মুখপাত্র জানান, শরণার্থী রোহিঙ্গাদের কাছে মানবিক সাহায্য পৌঁছে দেয়ার জন্যে সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করার অনুরোধও জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী টিলারসন।

টিলারসন এই মানবিক বিপর্যয়ের নিরপেক্ষ তদন্ত এবং এর পেছনে দোষী ব্যক্তিদের বিচারের বিষয়ে জাতিসংঘকে সহযোগিতা করতে মায়ানমারের সেনাবাহিনীকে অনুরোধ করেছেন বলেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র উল্লেখ করেন।

এদিকে, রোহিঙ্গা সংকটে মায়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি’র নির্লিপ্ততার কঠোর সমালোচনা করেছেন মায়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা তদন্তে নিয়োজিত বিশেষ দূত ইয়াংহি লি।

গত বৃহস্পতিবার জেনেভায় জাতিসংঘ সদর দফতরে এক বক্তব্যে সু চি’র সমালোচনা করেন তিনি। একই সাথে রোহিঙ্গা সংকটের কারণে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় চরমপন্থা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করেন লি।

ইয়াংহি লি বলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মায়ানমারে ঘৃণার মাত্রা এতটাই তীব্র যে হত্যাযজ্ঞ নিয়ে গণমাধ্যমগুলোও নিশ্চুপ ভূমিকা পালনে বাধ্য হচ্ছে।

তিনি বলেন, রাখাইনে কোনো ধরনের শিক্ষা-স্বাস্থ্যসেবার জায়গা নেই। সেখানে দশকের পর দশক ধরে চলছে রোহিঙ্গাদের জাতিগত নিধন। এ অবস্থায় সু চি’র নির্লিপ্ত আচরণে আমি আশাহত। তার বক্তব্যে মনে হয়, রোহিঙ্গা নামের কোনো জনগোষ্ঠীর অস্তিত্বই নেই।

সু চি নিজের জনপ্রিয়তা আর মানবিকতা বোধ কাজে লাগিয়ে এই বর্বরতা থামাতে পারতেন বলেও মন্তব্য করেন জাতিসংঘের দূত।

Check Also

ইসরাইলের হাইফা নগরীর

ইসরাইলের হাইফা নগরীর বাযান তেল শোধনাগারে ওই দুর্ঘটনা ঘটে

Kbdnews  ডেস্ক : ইসরাইলের হাইফা নগরীর একটি তেল শোধনাগারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।গণমাধ্যম প্রাথমিকভাবে বলছে, সাইবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *