Saturday , May 8 2021
Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মায়ানমার বাহিনীর হত্যার শিকার হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা

মায়ানমার বাহিনীর হত্যার শিকার হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা

DSC0258-620x330

Kbdnews ডেস্ক : মায়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমান জনগোষ্ঠীর ওপর চলমান নিপীড়নে এ পর্যন্ত প্রায় ১ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। যাদের বেশিরভাগই রোহিঙ্গা মুসলমান বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের এক জ্যেষ্ঠ প্রতিনিধি। দেশটির নোবেল বিজয়ী রাজনীতিবিদ অং সান সু চি’কে এমন ঘটনা বন্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে গতকাল শুক্রবার ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি’র কাছে এ মন্তব্য করেন তিনি।

পূর্বের সংঘর্ষের ভয়াবহতা এবং প্রত্যক্ষদর্শীদের মতামতের বরাত দিয়ে ইয়াংহি লি নামের ঐ প্রতিনিধি বলেন, চলমান সহিংসতায় এরই মধ্যে হয়ত ১ হাজার কিংবা তারও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। তিনি বলেন, নিহতরা দু’পক্ষেরই হতে পারেন তবে বেশিরভাগই রোহিঙ্গা।

সংবাদ সংস্থাটির বরাতে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইলে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, গত ২ সপ্তাহে মায়ানমার থেকে ১ লাখ ৬৪ হাজার বেসামরিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। গতকাল শুক্রবার জাতিসংঘের দেয়া তথ্যানুযায়ী বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত মোট ২ লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা প্রবেশ করেছেন।

মায়ানমার থেকে বিপুল পরিমাণ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করায় এরই মধ্যে রিফিউজি ক্যাম্পগুলো উপচে পড়ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আগস্টের ২৫ তারিখ রোহিঙ্গারা বেশ কয়েকটি হামলা চালিয়েছে এমন অভিযোগের পর থেকে তাদের ওপর মায়ানমার সেনাবাহিনীর শুরু হওয়া নির্মম নির্যাতন ও নিপীড়নে রাখাইন প্রদেশের রোহিঙ্গাদের গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার পর থেকে এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে বলে মত প্রত্যক্ষদর্শীদের।

বৌদ্ধ অধ্যুষিত মায়ানমারে সবসময়ই বঞ্চনার শিকার রোহিঙ্গারা। কয়েক পুরুষ ধরে মায়ানমারে বসবাস করে আসলেও দেশটি তাদের নাগরিকত্বকে অস্বীকার করে তাদের বাংলাদেশের অবৈধ অভিবাসী বলে আখ্যা দিয়ে আসছে।

তবে মায়ানমার সরকারের তথ্যানুযায়ী নিহতের সংখ্যা ৪শ ৩২। এর আগে মায়ানমারের সেনাবাহিনী বলেছিল তাদের হাতে ৩শ ৮৭ জন রোহিঙ্গা জঙ্গি নিহত হয়েছেন। অন্যদিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১৫ সদস্যও নিহত হয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার সেনাবাহিনীর প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, ২৫ আগস্টের পর থেকে ৬ হাজার ৬শ রোহিঙ্গা মুসলমানের বাড়ি এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের ২শ’ ১টি বাড়ি পুড়েছে এ অঞ্চলে।

মায়ানমার সরকার আরও জানায়, এ ঘটনায় ৩০ জন বেসামরিক নাগরিকও নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ৭ জন রোহিঙ্গা, ৭ জন হিন্দু এবং ১৬ জন রাখাইন বৌদ্ধ।

মায়ানমার সরকার এ তথ্য দিলেও লি বলছেন, মায়ানমার সকারের পক্ষে হতাহতের প্রকৃত সংখ্যা গোপন করা খুবই সম্ভব।

তিনি বলেন, এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক বিষয় যে সরকারের দেয়া তথ্যে সন্দেহ থাকলেও আমরা কোনোভাবেই বিষয়টির তদন্ত করতে পারছি না।

রোহিঙ্গারা নিজেরাই তাদের বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছেন মায়ানমার সরকারের এমন দাবির প্রতি গভীর সন্দেহ প্রকাশ করে তিনি বলেন, তাহলে পার্শ্ববর্তী বৌদ্ধদের গ্রামগুলোতে আগুন ছড়ালো না কেন?

মায়ানমার সরকারের দাবির প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি আরও বলেন, আপনি যদি বন্দুকসহ লোকজন দেখেন তবে আপনি পালাতে শুরু করবেন এবং ভীত থাকবেন, নিজের ঘরে আগুন দেয়া কী এতটা সহজ?

Check Also

ইসরাইলের হাইফা নগরীর

ইসরাইলের হাইফা নগরীর বাযান তেল শোধনাগারে ওই দুর্ঘটনা ঘটে

Kbdnews  ডেস্ক : ইসরাইলের হাইফা নগরীর একটি তেল শোধনাগারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।গণমাধ্যম প্রাথমিকভাবে বলছে, সাইবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *