Thursday , December 2 2021
Breaking News
Home / বাংলাদেশ / মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ

মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ

mobail fon a intranat of

 প্রতীকী ছবি

 হঠাৎ করেই মোবাইল সিমের ডাটা (ইন্টারনেট) ব্যবহার করতে পারছেন না গ্রাহকরা শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সকাল থেকেই বার বার চেষ্টা করেও মোবাইল ফোনের গ্রাহকেরা দ্রুতগতির থ্রিজি ফোরজি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারছেন না

অপারেটর সূত্রে জানা গেছে, আজ শুক্রবার ভোর ৫টা থেকে মুঠোফোনে দ্রুতগতির থ্রিজি ও ফোরজি ইন্টারনেট বন্ধ রয়েছে।

হাসান নামে এক গ্রামীণফোন গ্রাহক জানান, আজ সকালে দেশের বাহিরে থাকা ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলার জন্য মোবাইলে ডাটা অন করে দেখি হচ্ছে না। পরে কয়েকবার ফোন রিস্টার্ট দিলেও ডাটা আসেনি।

খুলনা থেকে একজন গণমাধ্যমকর্মী ফোনে জানান, সকালে গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক উভয় সিমের ডাটা চালু করেও ইন্টারনেট সংযোগ পাচ্ছি না। ইন্টারনেট বন্ধ রয়েছে কি না জানতে চান তিনি। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ‘কারিগরি ত্রুটির কারণে এটা হয়েছে। আমার মনে হয়, সমস্যাটি বেশিক্ষণ থাকবে না। সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) বক্তব্য প্রাথমিকভাবে পাওয়া যায়নি।

গ্রামীণ ফোন থেকে জানানো হয়েছে, থ্রিজি ও ফোরজি সেবা ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করা হচ্ছে।

 

 

মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক ১১ কোটি ৫৪ লাখ

image-282161-1633833446

তুন ১৭ লাখ ২০ হাজার ইন্টারনেট গ্রাহক পেয়েছে দেশের মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো বিটিআরসির সর্বশেষ হিসাবে, আগস্ট মাসে দেশে মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ১১ কোটি ৫৪ লাখ ১০ হাজারে পৌঁছেছে

জুলাইয়ে এই সংখ্যা ছিল ১১ কোটি ৩৬ লাখ ৯০ হাজার। ওই মাসটিতে এই গ্রাহক বেড়েছিল ৩৬ লাখ। সে হিসেবে এক মাস পরেই এই বৃদ্ধির হার অর্ধেকে নেমেছে। জুন মাসে এটি ছিল ১১ কোটি ৯০ হাজার। এই মাসটিতে ২৫ লাখ ৯০ হাজার নতুন গ্রাহক পায় মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। মে মাসে গ্রাহক সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ৭৫ লাখ। এপ্রিলে ছিল ১০ কোটি ৫৬ লাখ ২০ হাজার। এর আগে মার্চে ৩১ লাখ ৩৭ হাজার মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়তে দেখা যায়। মার্চে মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ৬৩ লাখ ৩০ হাজার। বিটিআরসির হিসাবে, ফেব্রুয়ারিতে মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ৩১ লাখ ৯৩ হাজার। জানুয়ারিতে এটি ছিল ১০ কোটি ৩১ লাখ ৯১ হাজার । ২০২০ সালের ডিসেম্বরে ছিল ১০ কোটি ২৩ লাখ ৫৩ হাজার। সালটির নভেম্বরে এই সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ১৯ লাখ ৫ হাজার। অক্টোবরে ছিল ১০ কোটি ২১ লাখ ৬ হাজার। আর সেপ্টেম্বরে এটি ছিল ১০ কোটি ২৪ লাখ ৭৮ হাজার।

 

Check Also

শীতের পিঠা

শীতের পিঠা বিক্রি

বাগমারা সংবাদদাতা:  বাগমারার বিভিন্ন হাটবাজার ও বড় বড় রাস্তার মোড়ে এমন পিঠা তৈরির দোকান চোখে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *