Thursday , December 2 2021
Breaking News
Home / বাংলাদেশ / আইন ও বিচার / গাংনীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিক গ্রেপ্তার অতঃপর জামিনে মুক্ত

গাংনীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিক গ্রেপ্তার অতঃপর জামিনে মুক্ত

গাংনীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিক গ্রেপ্তার অতঃপর জামিনে মুক্ত

স্টাফরিপোটার  :  মেহেরপুরের গাংনীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতারকৃত সাংবাদিক আল আমিনকে ১৫ দিনের অনতর্বর্তীকালীণ জামিন দিয়েছেন আদালত। শনিবার ভোর রাতে গাংনী থানা পুলিশ সাংবাদিক আল আমিন গ্রেফতারের পর মেহেরপুর আদালতে প্রেরণ করলে বিজ্ঞ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বেগম রাফিয়া সুলতানা আল আমিনকে জামিন প্রদান করেন।
জানা যায়, ২০২০ সালের ১১ মে মেহেরপুর থেকে প্রকাশিত একটি স্থানীয় দৈনিকে ‘গাংনীর সাবেক এমপি মকবুলের কান্ড, ২৬ বছর দখলে রেখেছে পরের বাড়ি’ এমন শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর মকবুল হোসেনের ভাগ্নে সবুজ হোসেন বাদী হয়ে গাংনী থানায় পত্রিকার প্রকাশক এম এ এস ইমন, সম্পাদক ইয়াদুল মোমিন, ও প্রতিবেদক আল আমিন হোসেনের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১২, তাং ১৩-০৫-২০২০ইং। মামলায় নিম্ম আদালত থেকে তারা দীর্ঘদিন জামিনে ছিলেন। সমপ্রতি পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করলে আদালত পরিবর্তীত হয় এবং বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গাংনী থানার এস আই সুমন জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় আদালতের পরোয়ানা থাকায় সাংবাদিক আল আমিনকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হলে বিজ্ঞ বিচারক তার জামিন মঞ্জুর করেন।
এ প্রসঙ্গে আল আমিনের বিজ্ঞ আইনজীবী একেএম শফিকুল আলম বলেন, আল আমিন একজন সাংবাদিক এবং তিনি অসুস্থ’। আদালত বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ১৫ দিনের অন্তর্বর্তীকালীণ জামিন দিয়েছেন। এ সময়ে তিনি খুলনা সাইবার ট্রাইবুন্যালে হাজির হয়ে স্থায়ী জামিনে আবেদন করবেন। আশা করা হচ্ছে তিনি সেখানেও জামিন পাবেন।
এদিকে আল আমিনের জামিনের খবরে গাংনী প্রেসক্লাবসহ সকল সাংবাদিকগণ আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
আমিরম্নল ইসলাম অল্ডাম
মেহেরপুর

Check Also

মেহেরপুরে শত্রæতাবশতঃ ৪ শ’কলাগাছ কর্তন

মেহেরপুরে শত্রæতাবশতঃ ৪ শ’কলাগাছ কর্তন

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম : মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর মাঠে শত্রæতা কওে ৪ শতাধিক কলাগাছ কেটে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *