Friday , February 26 2021
Breaking News
Home / খবর / মেহেরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ২৮ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে দুর্যোগ সহনীয় ঘর ও জমি প্রদানের শুভ উদ্বোধন

মেহেরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ২৮ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে দুর্যোগ সহনীয় ঘর ও জমি প্রদানের শুভ উদ্বোধন

মেহেরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী Gangni House& Land....... Gangni House& Land... Gangni House& Land.. Gangni House& Land

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম  :“বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না”প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষনাকে সামনে নিয়ে মেহেরপুরে ভূমিহীন, গৃহহীন হতদরিদ্র ও অস্বচ্ছল ২৮ পরিবার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ‘দুর্যোগ সহনীয় ঘর ও জমি। আজ শনিবার সকাল সোয়া ১০ টায় সারা দেশে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ বিতরণের উদ্বোধন করেছেন।
গাংনী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপসি’ত ছিলেন, গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভ’মি) নূর-ই-আলম সিদ্দিকী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাশিদুল হক জুয়েল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন, গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমান, প্রকল্প বাসত্মবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী নিরঞ্জন চক্রবর্তী প্রমুখ।
দুর্যোগ ব্যবস’াপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় উদ্যোগে মেহেরপুর সদরে ১৬, গাংনীতে ৮ ও মুজিবনগরে ৪টি ‘দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ করেছে উপজেলা প্রশাসন।গাংনীতে ৮ টি ভূমিহীন পরিবারকে ঘর দেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে কাজীপুরের মজিরদ্দীনের ছেলে ছইরদ্দীন, ছুরাত আলীর মেয়ে যমুনা খাতুন, হেকমত আলীর মেয়ে ফেরদৌসী, বামন্দীর রামনগরের আব্দুর রশীদের স্ত্রী তহমিনা, ষোলটাকার জুগিরগোফা গ্রামের দিাদার বক্সের মেয়ে হাজেরা খাতুন, চেংগাড়া গ্রামের ইয়াদ আলীর ছেলে জিন্নাত আলীসহ ৮ জনকে গৃহ ও জমির কাগজপত্র প্রদান করা হয়েছ্‌ে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ও এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সবার জন্য বাসস’ান নিশ্চিতকরণ কর্মসূচির আওতায় ওই ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।
গাংনী উপজেলা প্রকল্প বাসত্মবায়ন কর্মকর্তা নিরঞ্জন চক্রবর্তী জানান, সেমিপাকা প্রতিটি বসতঘরে থাকছে দুটি কক্ষ, বারান্দা, একটি রান্নাঘর ও একটি শৌচাগার। প্রতিটি বসতঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা। ‘দুর্যোগ সহনীয় ঘর ও ২ শতক জমি সহ কাগজ পত্র বুঝিয়ে দেয়া হবে।
সুবিধাভোগীরা জানান, আগে তাদের থাকার ভালো ঘর ছিল না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের খুব সুন্দর ঘরগুলো করে দিয়েছেন। তাই তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ।

 

Check Also

মেরিন গ্রাজুয়েটদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

মেরিন গ্রাজুয়েটদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার:   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সততা, দক্ষতা ও কর্তব্য নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *