Sunday , October 25 2020
Breaking News
Home / খবর / গাংনীর বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ। দুর্ভোগে লাখো মানুষ

গাংনীর বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ। দুর্ভোগে লাখো মানুষ

গাংনীর বামুন্দী-
আমিরুল ইসলাম অল্ডাম  মেহেরপুর  :   মেহেরপুরের গাংনীর বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়ক দীর্ঘ এক যুগেও সংস্কার না হওয়ায় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। একারনে ঐ অঞ্চলের লড়্গাধিক মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে। দ্রম্নত সময়ের মধ্যে সংস্কার করে আবারো চলাচলে উপযোগি করে তোলার দাবি এলাকাবাসির।
জানা গেছে,প্রায় দুই বছর পূর্বে ১ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে বামুন্দী কাজিপুর সড়কের টেন্ডার পায় চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর এলাকার মেসার্স জাকাউলস্নাহ এন্ড ব্রাদার্স। এলজিইডি কর্তৃপড়্গ কার্যাদেশ দিতে গড়িমসি করার কারনে ঠিকাদার জাকাউলস্নাহ হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ঠিকাদারের পড়্গে থাকলেও এলজিইডি কর্তৃপড়্গ আপিল করার কারনে মামলাটি ঝুলে রয়েছে বলে দাবি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের।
স’ানীয়রা জানান,বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়কে সব ধরনের গাড়ী চলাচল বন্ধ রয়েছে। একারনে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পন্য বাজারে নিতে পারছেনা। কাজিপুর বালিয়াঘাট অঞ্চলের লাখো মানুষকে দেবিপুর হয়ে বামুন্দী সহ বিভিন্ন জেলায় যাতায়াত করতে হচ্ছে। একদিকে সময় নষ্ট হচ্ছে অপরদিকে বাড়তি ভাড়াও গুনতে হচ্ছে সাধারন মানুষকে।
কয়েকজন অটোবাইক চালক জানান, বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়কে সব ধরনের গাড়ী চলাচল বন্ধ থাকায় তারা সংসার পরিজন নিয়ে কষ্টে আছেন। তাই দ্রম্নত সময়ের মধ্যে

গাংনীর বামুন্দী-

সড়ক পূনঃ নির্মানের দাবি করেন তারা।
স’ানীয় ইউপি সদস্য আসাদুল ইসলাম জানান, বামুন্দী-বালিয়াঘাট সড়কে চলতে গিয়ে গত দু মাসে অনত্মত শতাধিক দূর্ঘটনা ঘটেছে। দূর্ঘটনায় পঙ্গুত্ব বরন করেছে অনত্মত ৫০ জন। জন প্রতিনিধি হয়ে জনগনের কষ্ট দাড়িয়ে দেখা করা ছাড়া কোন উপায় নেই। তিনি সাময়িক ভাবে চলাচলের জন্য আপাতত ইটবালি দিয়ে উপযোগি করে গড়ে তোলার দাবি করেন।
বামুন্দী ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বিশ্বাসের সাথে এ বিষয়ে কথা বলতে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে কল দিলে তিনি রিসিভ করেননি।
গাংনী উপজেলা প্রকৌশলী গোলাপ শেখ জানান, মামলাটি দ্রম্নত নিস্পত্তি করে সড়ক সংস্কারের চেষ্টা চলছে। আসা করা যাচ্ছে আগামী দু এক মাসের মধ্যে কাজ শুরম্ন করা হবে। এ বিষয়ে মেহেরপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী আছাদুজ্জামানের সরকারী মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি রিসিভ করেননি।
মামলার বাদী ঠিকাদার জাকাউলস্নাহ জানান,চলতি মাসের ৩০ তারিখে মামলার দিন ধার্য আছে। ধার্য তারিখে মামলাটি নিস্পত্তি করার চেষ্টা করা হবে।
সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান জানান,ঠিকাদার ও এলজিইডি কর্তৃপড়্গের সাথে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করছি চলতি মাসের ৩০ তারিখে মামলার সমাধান হবে। সমাধান হওয়া মাত্রই কাজ শুরম্ন করা হবে।

 

গাংনী ইউপি চেয়ারম্যানদের উপজেলা সমন্বয় সভা বর্জন

গাংনীর বামুন্দী-

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম   মেহেরপুর   :মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা সমন্বয় সভা বর্জন করেছে ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দ। রবিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা সমন্বয় সভা শুরম্ন হলেও নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে সভা বর্জন করেন তারা।

মটমুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ বলেন,রবিবার সকালে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হবে এমন সংবাদ লোকমুখে জানতে পেরে বিষয়টি নিশ্চিত হতে শনিবার রাত ৯ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের আবু হানজালাকে ফোন দিলে সে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত করেন। যেহেতু চিঠি দিয়ে চেয়ারম্যান বৃন্দকে জানানো উচিত হলেও সমন্বয় সভার বিষয়টি জানানো হয়নি। একারনে সকলের সিদ্ধানত্ম মোতাবেক সভা বর্জন করা হয়েছে। সম্প্রতি সময়ে উপজেলার বিভিন্ন সভা থেকে চেয়ারম্যান বৃন্দকে যথাযথ মূল্যায়ন করা হয়না।
রাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম সাকলায়েন সেপু জানান, অনেক সময় সভা শুরম্ন হওয়ার কয়েক ঘন্টা আগে জানানো হয়। মাসিক সমন্বয় সভায় কোন চিঠি না দিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে গত রাতে জানানো হয় একারনে সভা বয়কট করা হয়েছে।
কাথুলী ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা জানান, চেয়ারম্যান বৃন্দের নানা কাজকর্ম থাকতে পারে যে কোন সভার অনত্মত ২ দিন আগে চিঠি দিলে প্রশ্ন উঠেনা। কিন’ রাতে মোবাইল ফোনে জানতে পারার কারনে চেয়ারম্যান বৃন্দের সিদ্ধানত্ম মোতাবেক সভা বর্জন করা হয়েছে। পরবর্তীতে সকল চেয়ারম্যান বসে পরবর্তী সিদ্ধানত্ম জানানো হবে।
ষোলটাকা ইউপি চেয়ারম্যাম মনিরম্নজ্জামানের বক্তব্য জানতে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তার ভাই পরিচয় দিয়ে জানায়,গত কয়েকদিন যাবৎ জ্বর সর্দি কাশি থাকার কারনে চেয়ারম্যানকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে এসেছি।
সাহারবাটি ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারম্নক বলেন,চিঠি না দিয়ে শনিবার রাতে মোবাইল ফোনে সমন্বয় সভার বিষয়টি জানানো হয়েছে। সকল চেয়ারম্যানের সিদ্ধানত্ম সেটা আমারও সিদ্ধানত্ম সেটাই।
সভা বর্জনের বিষয়ে জানতে বামুন্দী ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি রিসিভ করেননি। তেঁতুলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন মেহেরপুর আদালতে আছি এ বিষয়ে পরে কথা বলছি।
ধানখোলা ইউপি চেয়ারম্যান আখেরম্নজ্জামান জানান,শনিবার রাত ৯ টায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে সমন্বয় সভার কথা জানালেও চিঠি দেয়নি। এছাড়া মামলা থাকার কারনে আদালতে হাজিরা দিতে এসেছি।
গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক বলেন, চেয়ারম্যান বৃন্দের সভা বর্জনের বিষয়ে তার জানা নেই।

গাংনীর বামুন্দী-

গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম শাহনেওয়াজ বলেন,সমন্বয় সভা বর্জন করেছে এমন বিষয় না। চেয়ারম্যান বৃন্দ দুর দুরানেত্ম থাকেন একারনে ফোনে বলা হয়েছে হয়তো। তবে এরপর থেকে চিঠি দিয়ে জানানো হবে।
সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন বলেন,ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দ সমন্বয় সভার প্রান। তাই সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কয়েক দিন পূর্বেই চিঠি দিতে তাদের অবগত করা উচিত ছিলো। চেয়ারম্যান বৃন্দের অনুপসি’তির বিষয়টি সভায় উপস’াপন করা হয়েছে।

 

Check Also

পূজা মন্ডপ

গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমানের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন।

  আমিরুল ইসলাম অল্ডাম :মেহেরপুরের গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওবাইদুর রহমান বিভিন্ন পূজা মন্ডপ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *