Sunday , September 27 2020
Breaking News
Home / খবর / চাকরী দেয়ার নামে ১৫ লাখ টাকা নিয়ে ফেরত না দেয়ায় মেয়রের বিরুদ্ধে শহীদ মিনারে মৌমিতা খাতুনের আমরণ অনশন

চাকরী দেয়ার নামে ১৫ লাখ টাকা নিয়ে ফেরত না দেয়ায় মেয়রের বিরুদ্ধে শহীদ মিনারে মৌমিতা খাতুনের আমরণ অনশন

আমরণ অনশন আমরণ অনশন

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম :  চাকরী দেয়ার নামে ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েচাকরী দিতে না পারায় পাওনা টাকা ফেরত পেতে গাংনী মেয়রের বিরুদ্ধে শহীদ মিনারে মৌমিতা খাতুন পলির আমরণ অনশন শুরম্ন করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ট) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে পাওনা টাকার দাবিতে গাংনী পৌর এলাকার শিশিরপাড়া গ্রামের শাহাবুদ্দীন অহমেদ ওরফে বাহাদুরের মেয়ে মৌমিতা খাতুন পলি ও তার মা শহীদ মিনারে আমরন অনশনের সিদ্ধা্ত নেয়।একদিকে স’ায়ী চাকরী অন্যদিকে টাকা ফেরত। শর্তপূরন না হওয়া পর্যনত্ম পলি অনশনে থাকবেন বলে জানিয়েছে। একই সাথে তিনি প্রধান মন্ত্রীর হসত্মড়্গেপ কামনা করে লিখিত আবেদন প্রেরণ করেছে।
হত্যা ,গুম, ও চাঁদাবাজির চলমান মামলার আসামী উলেস্নখ করে পলি খাতুন জানান, মেয়র একজন ঠকবাজ, প্রতারক। পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম একজন ভূমি দস্যুও উলেস্নখ করেন পলি খাতুন। ৩ বছর আগে আমাকে পৌর সভায় ‘সহকারী কর আদায়কারী ’

আমরণ অনশন

পদে চাকরী দেয়ার নামে দফায় দফায় মেয়র আমার নিকট থেকে নগদ ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা নিয়েছে। পরবর্তীতে হত্যা মামলায় মেয়র জেলহাজতে থাকাকালীন সময়ে তার স্ত্রী শাহানা খাতুনের ইসলামী ব্যাংক হিসাব নম্বরে বিভিন্ন চেক মারফত ৮ লাখ ১০ হাজার মোট ১৫ লাখ টাকা প্রদান করা হয়েছে।এখন সে সম্পূর্ণ অস্বীকার করছে। আমার মত অনেককে চাকরি দেয়ার নামে নিঃস্ব করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পথে বসিয়েছেন।বার বার অনুনয় বিনয় করাতে আমাকে মাষ্টার রোলে পৌর সভায় কাজ করতে বলে। আমি দেড় বছর কাজ করলেও কোন বেতন ভাতা বা সম্মানীভাতা দেয়নি। সনত্মান সম্ভবা পলি খাতুন আরও জানান,মেয়র আশরাফুল ইসলামের ভয়ে অনেকে তার বিরম্নদ্ধে মুখ খুলতে ভয় পায় এমনকি প্রাণনাশেরও হুমকি দিচ্ছে।
অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মেয়র আশরাফুল ইসলাম সরেজমিনে শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে উপসি’ত থেকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন,পলি খাতুনের দাবী সম্পূর্ণ মিথ্যা।আমার বিরম্নদ্ধে সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্র। আমি চাকরী দেয়ার নামে তার নিকট থেকে কোন টাকা পয়সা গ্রহন করি নাই।

আমরণ অনশন

 

যদি সে প্রমান দিতে পারে তাহলে আমি ৩০ লাখ টাকা ফেরত দেবো। পলি খাতুনের স্বামী আমার ৫ কাঠা জমি ক্রয় করার জন্য ৬ লড়্গ টাকা দিয়েছে। বাদবাকী টাকা না দিতে পারায় জমি রেজিষ্ট্রী হয়নি। পলি খাতুন আমাকে কোন টাকা দেইনি। মাস্টার রোলে কাজের বিনিময়ে তার সম্মানীভাতা পরিশোধ করা হয়েছে॥ এসময় পৌর সভার ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমান, হিসাব সহকারী সহ পৌর সভার একাধীক কর্মচারী উপসি’ত ছিলেন।
এনিয়ে মেয়রের স্ত্রী শাহানা ইসলাম শানত্মনা টাকা নেয়ার বিষয়টি অকপটে স্বীকার বলে বলেন, আমার স্বামী কারাগারে থাকতে পলির বাবা ও স্বামী টাকা দিয়েছে। চাকরীর জন্য নাকি জমি ক্রয়ের জন্য তা আমি জানি না।
তবে এব্যাপারে জেলা প্রশাসক ড. মুনসুর আলম খান জানান, গাংনী পৌর সভার মেয়রের বিরুদ্ধে একটি মেয়ের শহীদ মিনারে অনশনের খবর পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদনত্ম সাপেড়্গে দোষী প্রমাণিত হলে মেয়রের বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস’া নেয়া হবে।
আমরণ অনশন

Check Also

স্টাফরিপোটার

মেহেরপুরে স্কাউটসের ত্রৈ-বাষিক কাউন্সিলে নতুন কমিটি গঠন

ছবি=স্টাফরিপোটার  স্টাফরিপোটার  : বাংলাদেশ স্কাউটস, মেহেরপুর সদর উপজেলার ত্রৈ-বার্ষিক কাউন্সিল সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় তিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *