Wednesday , August 5 2020
Breaking News
Home / বাংলাদেশ / আইন ও বিচার / মশিয়ালী হত্যাকান্ড: এখনও উদ্ধার হয়নি অস্ত্র

মশিয়ালী হত্যাকান্ড: এখনও উদ্ধার হয়নি অস্ত্র

মশিয়ালী হত্যাকান্ড:

ছবি :বি এম রাকিব হাসান 

বি এম রাকিব হাসান:   খুলনার খানজাহান আলী থানাধীন মশিয়ালী গ্রামের জাকারিয়া-জাফরিন ও মিল্টন বাহিনীর গুলিতে গ্রামের নিরীহ ৩ জন নিহত, ৮ জন গুলিবিদ্ধ এবং ড়্গুব্ধ গ্রামবাসীর গণপিটুনিতে হামলাকারীদের একজন নিহতের ঘটনায় গঠিত অনুসন্ধানী তদনত্ম কমিটি তাদের কাজ শুরম্ন করেছে। চার সদস্যের তদনত্ম কমিটি মশিয়ালীর ঘটনাস’লে এসে ঘটনার প্রত্যড়্গদর্শী কয়েকজনের সাড়্গাৎকার গ্রহন করেছে।
এদিকে ঘটনার এক সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও হামলায় ব্যবহৃত অবৈধ অস্ত্র এখনও উদ্ধার করতে পারিনি পুলিশ। গ্রেফতার হয়নি মামলার প্রধান আসামী জাকারিয়া জাকার ও তার ভাই মিল্টনসহ এজাহারভুক্ত ১৮ আসামী। অপরদিকে ট্রিপল হত্যা মালায় গ্রেফতারকৃত মহানগর ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সহ-সভাপতি শেখ জাফরিন হাসান, জাহাঙ্গীর, আরমান ও রহিম রিমান্ডে পুলিশে গুরম্নত্বপুর্ণ তথ্য দিয়েছে বলে সুত্রে জানা গেছে।
মশিয়ালীর হত্যাকান্ডের ঘটনায় কারণ অনুসন্ধানে গঠিত তদনত্ম কমিটির প্রধান খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশিনার(অপরাধ) এস এম ফজলুর রহমানের নেতৃত্বে কমিটির অন্য সদস্যরা ঘটনাস’ল পরিদর্শন করে ঘটনার প্রত্যড়্গদর্শীদের সাড়্গাৎকার গ্রহন করে। তদনত্ম কমিটির সদস্য অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) কানাই লাল সরকার ও সহকারী পুলিশ কমিশনার (দড়্গিণ) শিপ্রা রাণী দাস গ্রামের প্রত্যড়্গদর্শীদের সাড়্গাৎকার গ্রহন করে। প্রত্যড়্গদর্শী এবং ঘটনায় আহত কয়েকজন ১৬ জুলাই এর মর্মানিত্মক হত্যাকান্ডসহ হত্যাকান্ডের ঘটনার নেপত্থের ঘটনা বর্ণনা দেন। তদনত্ম কমিটির অপর সদস্য অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশিকিউশন) মো. আনোয়ার হোসেন এ সময় উাপসি’ত ছিলেন।
এ ব্যাপারে তদনত্ম কমিটির সদস্য অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) কানাই লাল সরকার বলেন, অনুসন্ধানে এটা তাদের রম্নটিন কাজ চলছে আমরা গ্রামবাসীর সাড়্গাৎকার গ্রহন করছি। এ বিষয়ে এখন কোন মনত্মব্য করার কিছু নাই।
অনুসন্ধানী তদনত্ম কমিটির কাছে সাড়্গাৎকার প্রদানকারী হামলার স্বীকার গ্রামের মৃত আমজাদ শেখের পুত্র মো. আজাদ শেখ (৪০) এবং প্রত্যড়্গদর্শী কুদ্দুস শেখের ছেলে রফিক শেখ বলেন, গ্রামের সর্বস’রের মানুষ জাকারিয়া-জাফরিন-মিল্টন বাহিনীর কাছে জিম্মি থেকে বহু নির্যাতন, নিপিড়ন, হামলা, মামলা সর্য্য করে বসবাস করে আসছিল। তাদের নির্যাতনের স্বিকার গ্রামের সাধারণ মানুষ আইন শৃংখলা বাহিনী বা এলাকার জনপ্রতিনিধিদের কারও সহযোগিতা পায়নি। এমন কি তাদের বিরম্নদ্ধে কেহ প্রতিবাদ বা কথা বলেস্ন বা তাদের বাহিনীর কোন সদস্যের অপরাধের বিষয় কাউকে কিছু বলেস্ন মুহুর্তের মধ্যে তার বিরম্নদ্ধে সকল ধরণের ব্যবস’া নিতো জাকারিয়া গং।
এদিকে ট্রিপল হত্যাকান্ড এবং গুলি করে নির্বিচারে গুলি হতাহতের ঘটনার নায়ক জাকারিয়া, জাফরিন, মিল্টনসহ জড়িতদের ফাসির দাবীতে আজ বিকেলে গ্রামবাসী মিছিল বের করে। মিছিলটি খুলনা যশোর মহাসড়ক হয়ে ইষ্টার্ণগেটে এসে শেষ হয়। মিছিল পরবর্তি পথ সভায় সাবেক মেম্বর ও আওয়ামীলীগ নেতা আ. হামিদ সরদার, রেজওয়ান রাাজাসহ গ্রামের বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ বক্তৃতা করেন।

 

Check Also

গাংনীতে প্রেমিকার সাথে

গাংনীতে প্রেমিকার সাথে অভিমানে সেনা সদস্য’র বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম : মেহেরপুরের গাংনীতে প্রেমিকার সাখে অভিমানে এক সেনা সদস্য বিষপানে আত্মহত্যার অপচেষ্টা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *