Friday , August 14 2020
Breaking News
Home / খবর / গাংনীতে ইউপি সদস্যর সম্মানীয় বকেয়া ভাতা প্রাপ্তির জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আবেদন

গাংনীতে ইউপি সদস্যর সম্মানীয় বকেয়া ভাতা প্রাপ্তির জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আবেদন

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম : গাংনী উপজেলার সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের সকল ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বৃন্দরা বকেয়া ভাতা প্রাপ্তির জন্য আজ সোমবার বিকেলে গাংনী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেন।অভিযোগ পত্রানুযায়ী জানা গেছে, উপজেলার ৭নং সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের বিগত ৪৬ মাসের সম্মানী ভাতা না পাওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
স’ানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের ০৯/০৮/২০১৭ ইং তারিখে ৪৬.০১৮.০৩২.০০.০০.০২৩.২০১৫(আংশ-১) ৫৩৪নং স্মারকের প্রজ্ঞাপনে ইউনিয়ন পরিষদ হতে প্রতি মাসে ৪ হাজার ৪০০ টাকা করে। ০১/০৮/২০১৬ ইং তারিখ হতে অদ্যাবধি মোট পাওনা ২৪ লড়্গ ২৮ হাজার ৮০০ টাকা।এর মধ্যে পরিশোধ করেছে ৫ লড়্গ ৪৬ হাজার ৪০০ টাকা। বাকী রয়েছে ১৮ লড়্গ ৬২ হাজার ৪০০ টাকা। পরিষদের সংরড়্গিত মহিলা সদস্য ৩ জন সহ ১২ জন সিল -স্বাড়্গর সংবলিত আবেদন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় বরাবর প্রেরণ করা হয়েছ্‌। ে প্রশাসনিকভাবে এই সমস্যার সমাধান না হলে আমরা সকলেই সংশিস্নষ্ট চেয়ারম্যান গোলাম ফারম্নক এর বিরম্নদ্ধে অনাস’া প্রসত্মাব নিয়ে আসার সিদ্ধানত্ম নিতে বাধ্য হবো।
মাাসিক মিটিং দেওয়ার কথা থাকলেও কোন মাসে মিটিং দেওয়া হয়নি। আমাদের সকল সদস্যর কাছ থেকে সাদা কাগজে সহি করে নেই। কিন’ মাসিক মিটিং দেয়না ।সাদা কাগজে সহি দিতে না চাইলে সচিব মহোদয় হুমকী দিয়ে বলে আমি পরে রেজুলেশন করে নেব।এমনকি ইউনিয়ন পরিষদের কোন প্রকার উন্নয়ন মূলক বরাদ্দ আসলে আমরা জানতেও পারিনা।চেয়ারম্যান ও সচিব দুজনের যোগসাজশে সমসত্ম কাজ কর্ম করে থাকে।আমাদের জানানোর প্রয়োজন মনে করে না। সম্মানী ভাতা পাওয়ার জন্য চেয়ারম্যান ও সচিব মহোদয়কে বললেও কর্ণপাত করে না। বলে, দেব কোথা থেকে ,অথচ নিয়মিত ট্যাক্স্র ও ট্রেড লাইসেন্স ফিসের টাকা তোলা হয়ে থাকে। বিগত ৪৬ মাস সম্মানী ভাতা বাকী রয়েছে। বিগত আগস্ট ২০১৬ হতে অদ্যবধি পর্যনত্ম সম্মানী ভাতার টাকা প্রাপ্তির আবেদন জানাচ্ছি। ভাতার টাকা পেতে ব্যবস’া নিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসক ও স’ানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছ্‌।এেব্যাপারে সাহারবাটি ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারম্নক জানান, পরিষদের আয় না থাকলে আমি কোথা থেকে ভাতার টাকা দেব। ভ্যাট-ট্যাক্স আদায় না হলে অথবা সরকারীভাবে কোন সুযোগ সুবিধা না পেলে আমিকি বাবার সম্পত্তি বিক্রি করে মেম্বরদের ভাতার টাকা পরিশোধ করবো। সকল মেম্বরগণ যদি আমার বিরম্নদ্ধে অনা্‌স’া নিয়ে আসে তাহলে আমিও পরিষদ থেকে পদত্যাগ করবো।

 

Check Also

মোল্লাহাটে

মোল্লাহাটে সাবেক স্ত্রী’র চাচাতো ভাইকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ

    মিয়া পারভেজ আলম   মোল্লাহাট প্রতিনিধি :    বাগেরহাটের মোলস্নাহাটে সাবেক স্ত্রীর চাচাতো ভাইকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *