Monday , September 28 2020
Breaking News
Home / বাংলাদেশ / সংসদ / সংসদে শোকের ছায়া : প্রিয় মানুষগুলো একে একে চলে যাচ্ছেন বলে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী

সংসদে শোকের ছায়া : প্রিয় মানুষগুলো একে একে চলে যাচ্ছেন বলে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী

সংসদে শোকের ছায়া

সংসদ রিপোর্টার:   মাত্র কয়েক ঘণ্টা ব্যবধানে পর পর দুজন বিশস্ত সহযোদ্ধাকে হারিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাদের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুব দুঃখজনক। এরপর কয়েক সেকেন্ড চুপ হয়ে যান, এসময় প্রধানমন্ত্রীকে কাঁদতে দেখা যায়। এরপর কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আসলে আমার খুব কষ্ট হচ্ছে বলতে। দুজনকে হারানো খুবই দুঃখজনক। শোক প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এভাবেই আপ্লুত হয়ে পড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় উপস্থিত সব সংসদ সদস্য স্তব্ধ হয়ে যান। নীরবতা নেমে আসে অধিবেশনে। টিভির পর্দায় দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী তার মুখের মাস্কটি দিয়ে মুখ ঢেকে কাশি দিচ্ছেন।
সংসদের রেওয়াজ অনুযায়ী চলতি সংসদের কোনো এমপি মারা গেলে তাদের সম্মানে শোক প্রস্তাব আনা হয় এবং শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনার পর সংসদের অধিবেশন মুলতবি করা হয়। একাদশ জাতীয় সংসদের বাজেট ও অষ্টম অধিবেশনের দুই দিন মুলতবি থাকার পর বৈঠক গতকাল রোববার সকাল ১১টা ২০ মিনিটে শুরু হয়। অধিবেশন শুরুতেই শোক প্রস্তাব আনা হয়। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন। আলোচনা শেষে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করার পর সংসদের বৈঠক মুলতবি করা হয়। করোনাকালের অধিবেশন হিসেবে বরাবরের মতোই কঠোর বিধি-নিষেধের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বৈঠকে অংশ নেন মন্ত্রী এমপিরা।

নাসিমের মৃত্যুতে আনিত শোক প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, করোনার কারণে আজ (রোববার) সংসদের বৈঠকে যেতে বাধা দেয়া হয়েছে, সংসদে আসব অনেক জায়গা থেকে কিন্তু আমাকে ভীষণভাবে বাধা দেয়া হয়েছে, নিষেধ করা হয়েছে। বলেছে-নেত্রী আপনি যাবেন না। আমি বললাম গুলি, বোমা, গ্রেনেড কত কিছুই তো মোকাবিলা করে এ পর্যন্ত এসেছি। আর একটা অদৃশ্য শক্তি তার

ভয়ে ভীত হয়ে থাকবো? প্রধানমন্ত্রী বলেন, দারিদ্র্যের হার মাত্র ১০ বছরের মধ্যেই আমরা কমিয়ে এনেছি। আমাদের জিডিপি বেড়ে গিয়েছিল। আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছিলাম। কিন্তু এমন একটা অদৃশ্য শক্তি করোনাভাইরাস সারাবিশ্বটাকে স্থবির করে দিয়েছে। সারাবিশ্বটাতে কেমন একটা অস্বাভাবিক পরিবেশ সৃষ্টি করলো। আমাদের কোনো নেতাকর্মী মারা গেলেও আমরা ছুটে গেছি তার জানাজায়, কবরে ফুল দেয়া ও পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য। এখন এমনই অস্বাভাবিক পরিবেশ যে আমরা এবার সেটা করতে পারলাম না। সেটাই হলো সবচাইতে বড় কষ্টকর। একটা আতঙ্ক, ভয়-ভীতি যেন সারাবিশ্বকে পেয়ে বসেছে।

তিনি আরো বলেন, আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি অন্ততপক্ষে দেশের মানুষ যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে। পাশাপাশি করোনার ভয়ে মানুষগুলোকে তো না খেয়ে মারতে পারি না। এটা হলো বাস্তবতা। তাদের বেঁচে থাকার ব্যবস্থা তো আমাদের নিতে হবে। তাদের জীবনযাত্রা যেন চলে সেই ব্যবস্থা আমাদের করতে হবে। অথচ এই আতঙ্কটা এমন পর্যায়ে চলে যাচ্ছে যেটা সত্যি খুব দুঃখজনক। তবে আমরা ঠিক করেছি কোনো কোনো এলাকায় বেশি করোনাভাইরাস দেখা যাচ্ছে সেটা লকডাউন করা।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন-সংগ্রামে মোহাম্মদ নাসিমের অবদানের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাকে ১৪ দলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। কারণ তিনি সবাইকে নিয়ে চলতে পারতেন। শরিক দলের সদস্যরাও তাকে ভালো জানতেন। তিনি সফলতার সঙ্গে সেই দায়িত্ব পালন করেছেন। তার মৃত্যুতে বিরাট ক্ষতি হয়েছে নিঃসন্দেহে। শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর মৃত্যুতেও যে ক্ষতি হয়েছে তা পূরণ হবার নয় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এই আলোচনায় আরও অংশ নেন বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের, আওয়ামী লীগের মতিয়া চৌধুরী, ডা. হাবিবে মিল্লাত ও মৃণাল কান্তি দাস, ওয়ার্কার্স পার্টির মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এবং জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ। আলোচনা শেষে সর্বসম্মতিতে শোক প্রস্তাবটি গ্রহণ করা হয়। এরপর এক মিনিট নীরবতা পালন ও আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। এরপর দিনের অন্যান্য কার্যসূচি স্থগিত করে অধিবেশন মুলতবি করা হয়।

সংসদে উপস্থিত সবাইকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করে সংসদ ভবন ছাড়াও অধিবেশন কক্ষে ঢুকতে হয়। এ ছাড়া নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখতে নির্ধারিত এমপিদের সংসদে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এ জন্য যারা আজ যাওয়ার জন্য তালিকাভুক্ত শুধু তারাই অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন। এ সময় সবাই মাস্ক পরে ছিলেন। সবার তাপমাত্রা মাপা হয়েছে। অসুস্থ ও বয়স্ক এমপিরাও সংসদে যাননি।

এর আগে ১০ জুন এই বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। এর পরের দিন বৃহস্পতিবার ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপিত হয়। এরপর সংসদের বৈঠকে ১৪ জুন সকাল ১১টা পর্যন্ত মুলতবি করাা হয়।

Check Also

জাতীয় সংসদে

করোনার ভয়াবহ দুর্যোগের মাঝেই আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করা হবে

আজ ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ মো. কামরুল হাসান : করোনার ভয়াবহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *