Thursday , September 24 2020
Breaking News
Home / খবর / দেশের বিভিন্ন স্থানে কালবৈশাখীর ছোবল রাজধানীতে নিহত ৩

দেশের বিভিন্ন স্থানে কালবৈশাখীর ছোবল রাজধানীতে নিহত ৩

jhor

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কালবৈশাখীর ছোবলে ঢাকায় ৩ জন নিহত হয়েছে। রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড় ও পশ্চিম শেওড়াপাড়া এলাকায় ঝড়ে ভবনের ইট পড়ে ২জন এবং সংসদ ভবন এলাকায় গাছচাপা পড়ে একজন নারী নিহত হয়েছেন।

কালবৈশাখীর পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে শিলাবৃষ্টিরও খবর পাওয়া গেছে। রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে ঢাকায় ঝড় ও বৃষ্টি শুরু হয়। কয়েকটি সড়কে গাছ উপড়ে পড়ে। ফলে যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। ঝড় শেষ হলেও যানবাহনের অপেক্ষায় ও দীর্ঘ যানজটে আটকে থাকতে হয় নগরবাসীদের। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় ভূতুড়ে পরিবেশের সৃষ্টি হয়। অফিস ফেরত লোকজন বিভিন্নস্থানে আটকা পড়েন।

এদিকে গত রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে পুরানা পল্টন মোড়ে মলি্লক কমপ্লেঙ্রে নিচে ভবনের ইট ধসে এক চা দোকানি মারা যান। নিহত হানিফ (৫০) বরিশাল জেলার মেহেন্দীগঞ্জ থানার উলানিয়া গ্রামের মৃত আবদুল লতিফের ছেলে। বর্তমানে ১০৮ দক্ষিণ মুগদা পরিবারের সাথে ভাড়া বাসায় থাকতেন।

পুলিশ জানায়,

ঝড়ের সময় ঐ ভবনটির ইট ধসে পড়ে চা দোকানি আহত হন। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পল্টন থানার এসআই সুজন কুমার তালুকদার জানান, ঝড়ের সময় ওপর থেকে তার শরীরে ইট পড়ে তিনি মারা গেছেন। বর্তমানে লাশ ঢামেক মর্গে রয়েছে।

এদিকে সংসদ ভবন এলাকায় গাছ ভেঙে পড়ে এক নারী মারা গেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শেরে বাংলা থানার ডিউটি অফিসার এসআই জোনায়েদ। তবে ঐ নারীর পরিচয় জানা যায়নি।

এদিকে পশ্চিম শেওড়াপাড়ায় নিহত ব্যক্তিটি পিকআপ ভ্যানের চালক। তার পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

এছাড়া হঠাৎ ঝড়ে রমনা পার্কের সামনে গাছ ভেঙে সিএনজি ও প্রাইভেটকারের ওপর পড়ে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি বলে জানা গেছে।

ঝড় কিছুটা থামলেও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও হালকা বজ্রপাত চলে বেশ কিছুক্ষণ। এছাড়া ঝড়ের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল এক ঘণ্টা বন্ধ থাকে। কুষ্টিয়ার বিভিন্ন উপজেলায় কালবৈশাখী ও শিলাবৃষ্টি হয়েছে।

এর আগে রোববার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছিল, দুপুর ৩টা থেকে পরবর্তী ১২ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

গতকাল ভোরবেলা মেঘলা আকাশ। এরপর দুপুরে ভ্যাপসা গরম। বিকালে আবার মেঘলা আকাশ। অবশেষে সন্ধ্যায় দমকা হাওয়ার সঙ্গে ধূলিঝড়। পরে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি। তারপর শুরু হয় কালবৈশাখী, সঙ্গে রাজধানীর কিছু কিছু এলাকায় শিলাবৃষ্টিও হয়েছে। এছাড়া মগবাজারে একটি বেসরকারি হাসপাতালের দেয়াল ধসের ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হওয়া ঝড় চলে প্রায় ২০ মিনিটের মতো। এরপর হালকা থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে আরও কিছুক্ষণ। বেশিরভাগ রাস্তায় গাছের ছোট ছোট ডাল-পাতা পড়ে বিছিয়ে রয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের ডিউটি অফিসার আতাউর রহমান জানান, ঢাকার মগবাজারের আদ্-দ্বীন হাসপাতালের একটি দেয়াল ধসের খবর পেয়ে সেখানে একটি ইউনিট পাঠানো হয়েছে।

ঝড় শুরুর কিছুক্ষণ পরেই রাজধানীর ধানম-ি, শুক্রাবাদ, পান্থপথ, কলাবাগান, বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার আশপাশ, আজিমপুর, লালবাগ, মগবাজার, মৌচাক, মাতুয়াইলসহ বেশ কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ চলে গিয়ে আঁধার নেমে আসে। বজ্র চেরা আলোয় এ সময় এসব এলাকা ভূতুড়ে হয়ে ওঠে। ঢাকা বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির (ডিপিডিসি) পরিচালক (অপারেশন) হারুন উর রশীদ জানিয়েছেন, ঝড়ে ধানম-ি, লালবাগ, মগবাজার ও মাতুয়াইল এলাকার ৪টি ১৩২ কেভি গ্রিড লাইন বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে এসব এলাকাসহ আশপাশের অনেক এলাকা বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে।

আমাদের মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে এক ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঝড়ো বাতাস কমে গেলে এই নৌপথের সব ফেরি পর্যায়ক্রমে চালু করা হয়। এরপর থেকে উভয়পাড়ের ঘাট এলাকায় আটকেপড়া বাস-ট্রাকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন ফেরিতে পারাপার করা হচ্ছে। এর আগে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ঝড়ো বাতাসের কারণে এ নৌপথের ফেরি চলাচল বন্ধ করা হলে যাত্রীসহ যানবাহন শ্রমিকরা দুর্ভোগে পড়েন।

তখন বিআইডবিস্নউটিএর আরিচা কার্যালয়ের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পরিচালক ফরিদুল ইসলাম জানান, বিকালে ঝড়ো হাওয়ায় পদ্মা-যমুনায় প্রবল ঢেউ আর স্রোতের কারণে লঞ্চ চলাচল ব্যাহত হচ্ছিল। লঞ্চগুলো অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছিল। সাড়ে ৫টার দিকে প্রবল বাতাসে ঢেউয়ের মাত্রা বেড়ে যায়। এতে নৌদুর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

বিআইডবিস্নউটিসির আরিচা কার্যালয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মহিউদ্দিন রাসেল জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঝড়ো বাতাস কমে গেলে ফেরি চলাচল শুরু হয়।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, কুষ্টিয়ায় রোববার বিকাল পৌনে ৫টায় কালবৈশাখী ও শিলাবৃষ্টি হয়। বিভিন্ন উপজেলার ওপর দিয়ে চলে প্রকৃতির তা-ব। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী চলা এই ঝড় ও শিলাবৃষ্টির কারণে উঠতি ফসলসহ গাছপালা ও কাঁচাপাকা ঘড়বাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

Check Also

মোল্লহাটে

মোল্লহাটে শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি’র জনসভায় বোমা বিষ্ফোরণে নিহত ও আহতদের স্মরণে দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠিত

মিয়া পারভেজ আলম মোল্লাহাট প্রতিনিধি ঃ  মোল্লাহাটে জননেতা শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি’র নির্বাচনী জনসভায় স্বাধীনতা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *