Friday , February 26 2021
Breaking News
Home / খবর / মোল্লাহাটে নির্মিত হচ্ছে ১শ মেঘাওয়াট মধুমতি পাওয়ার প্লান্ট এবছরই শুরু হবে বিদ্যুৎ উৎপাদন

মোল্লাহাটে নির্মিত হচ্ছে ১শ মেঘাওয়াট মধুমতি পাওয়ার প্লান্ট এবছরই শুরু হবে বিদ্যুৎ উৎপাদন

bagerhat 1
মিয়া পারভেজ আলম,মোল্লাহাট (বাগেরহাট) সংবাদদাতা ঃ বাগেরহাটের মোল্লাহাটে ৮০০ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত হচ্ছে ১শ মেঘাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মধুমতি পাওয়ার প্লান্ট। ইতিমধ্যে এই প্রকল্পের প্রায় ৬০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই বছরের শেষের দিকে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির বাকি কাজ শেষ হবে এমনটাই দাবী কতৃপক্ষের। তবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি উৎপাদনে গেলে দেশের বিদ্যুতের চাহিদা অনেকাংশে পুরণ হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাগেছে, মোল্লাহাট উপজেলার মধুমতি নদীর তীরে গাড়ফা ও গ্রীশনগর মৌজায় ১৬ একর জমির উপর নির্মিত হচ্ছে মধুমতি পাওয়ার প্লান্ট। এই বছরের ২৮ জানুয়ারী বাগেরহাট জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই জমি বুঝে দেওয়ার পর শুরু হয় এই পাওয়ার প্লান্টের নির্মান কাজ। নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানী লিমিটেড এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। চায়না ন্যাশনাল ম্যাশিনারি ইমপোর্ট এন্ড ইক্সপোর্ট কর্পোরেশনের (সিএমসি)

bagerhat 3

কারিগরি সহায়তায় ইতিমধ্যে এর ৬০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে বালু ভরাট, সীমানা প্রাচীর নির্মান, ৬টি ইঞ্জিন ও জেনারেটর স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। চলছে কন্টোল রুম, আবাসিক ভবন ও সংযোগ স্থাপনের কাজ। সাত শতাধিক দেশী-বিদেশী দক্ষ শ্রমিক ও আধুনিক যন্ত্রপাতির সম্মন্বয়ে দ্রুতগতিতে এই বিদ্যুতের কেন্দ্রের নির্মান কাজ এগিয়ে চলছে। এবছরের ৩১ ডিসেম্বর এই বিদ্যুৎ কেন্দ্র উৎপাদনে যাবে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি থেকে সাড়ে ১৪ কিলোমিটার দুরে গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইনের কাছে অবসি’ত বিদ্যুতের সাব-স্টেশনের মাধ্যমে জাতীয় গ্রীডে সংযুক্ত হবে এই কেন্দ্রে উৎপাদিত বিদ্যুৎ।

bagerhat 5

নির্মানাধীন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ- ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান লাম ইন্টারপ্রাইজের প্রকল্প ব্যবস’াপক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ জোবায়ের রহমান জানান, জানুয়ারী মাসে বাঁধ নির্মানের মধ্যদিয়ে প্রথম তারা কাজ শুরু করেন। পরে বালু ভরাট, সীমানা প্রাচীর নির্মান, নদীর পাশে পাইলিং এর কাজ শেষ হয়েছে। বর্তমানে ইন্টারনাল রোড, এপ্রোচ রোড, কানেকটিং রোড, আবাসিক ভবন, আনসার ব্যারাকসহ ৫টি ভবনের নির্মান কাজ চলছে।
তদারকিকারী প্রতিষ্ঠান জিটেনকোর এর জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মোহব্বত মোল্লা জানান, কাজের ৬০ ভাগ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। ওয়েল ট্যাঙ্কারের কিছু মালামাল পথে আছে, সেগুলো এসেগেলেই আগামী মাসের মধ্যেই ওয়েল ট্যাঙ্কারের কাজ শেষ হবে। জেনারেটরের সাথে ইঞ্জিন ফিটিং চলছে।

bagerhat 4

নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানী লিমিটেডের উপ-সহকারী ব্যবস’াপক মোঃ আনিছুর রহমান জানান, ছয়টি জেনারেটর এবং ছয়টি ইঞ্জিন ইতিমধ্যে ফ্লাটফর্মের উপর বসানো হয়েছে। যথা সময়েই এটি উৎপাদনে যাবে।
চায়না ন্যাশনাল ম্যাশিনারি ইমপোর্ট এন্ড ইক্সপোর্ট কর্পোরেশনের চীফ ইঞ্জিনিয়ার মিঃ টিনগো বলেন, সকল পাইলিং এর কাজ শেষের পথে। যথা সময়ে কাজ হস্তান্তর করা হবে।

bagerhat2

মধুমতি ১০০ মেঘাওয়াট পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্পের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইমতিয়াজ আহম্মেদ জানান, পাওয়ার প্লান্টের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর এটি উৎপাদনে যাবে। সাড়ে ১৪ কিলোমিটার ট্রাসমিশন লাইন টেনে গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইনের সামনে সাব স্টেশনে এখানে উৎপাদিত বিদ্যুৎ যোগ হবে। বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামরুজ্জামান টুকু বলেন, মোল্লাহাটে এই প্রকল্পটি নির্মান হওয়ায় বাগেরহাটবাসি সৌভাগ্যবান। বর্তমান সরকারের সময় দক্ষিণাঞ্চলের যে উন্নয়ন হচ্ছে এই বিদ্যুৎ প্রকল্পটি তার মধ্যে একটি। মোল্লাহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহিনুল আলম ছানা বলেন, আওয়ামীলী সরকার দেশের উন্নয়নে বিশ্বসি তারি ধারাবাহিকতায় মোল্লাহাটে এই বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে। এখানে উৎপাদিত বিদ্যুৎ দেশের বিদ্যুতের চাহিদা পুরনে ভূমিকা রাখবে।
এই বিদ্যুৎ কেন্দট্রি উৎপাদনে গেলে এলাকায় নতুন নতুন শিল্প কারকানা গড়ে উঠবে। যার ফলে বেকার সমস্যা অনেকাংশে সমাধান হবে এমনটাই প্রত্যাসা এলাকাবাসির।

 

Check Also

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮ আহত ১৬

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮ আহত ১৬

গতকাল সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে ৮ জন নিহত ও ১৬ জন আহত হয়েছে। Kbdnewsপ্রতিনিধি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *