Thursday , December 2 2021
Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / জঙ্গি পরিস্থিতি এড়াতে পারবে বাংলাদেশ, আশাবাদী ভারত

জঙ্গি পরিস্থিতি এড়াতে পারবে বাংলাদেশ, আশাবাদী ভারত

KBDNEWS : বাংলাদেশ সরকার সাম্প্রতিক বিভিন্ন হামলার নেপথ্য  যারা আছে বিচারের মাধ্যমে জঙ্গি পরিস্থিতি এড়াতে পারবে বলে মনে করে ভারত।

দেশটি সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দৃঢ়ভাবে কাজ করার কথাও বলেছে।

ঢাকার গুলশানে জঙ্গি হামলার ঘটনায় শুক্রবার বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীকে পাঠানো চিঠিতে সুষমা স্বরাজ এসব কথা জানান।

চিঠিতে সুষমা স্বরাজ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করে এ ঘটনায় আহতদের দ্রুত সুস্থ কামনা করেন সুষমা স্বরাজ।

তিনি বলেন, গুলশানে হলি আর্টিজানে কাপুরুষোচিত হামলায় নির্দোষ মানুষের প্রাণহানির সংবাদে আমি অত্যন্ত মর্মাহত।  এমন অমানবিক সহিংসতা খুবই দুর্ভাগ্যজনক, বিশেষ করে পবিত্র রমজান মাসে যখন সত্যিকারের বিশ্বাসীদের মন আধ্যাত্মিক জগতের সন্ধানে থাকে।

চিঠিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শোকের এই সময়ে ভারত দৃঢ়ভাবে বাংলাদেশের পাশে আছে। আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলয়ে কাজ করব। ঘৃণা, সহিংসতা ও সন্ত্রাসের আদর্শের হুমকি থেকে আমাদের সমাজকে রক্ষা করতে হবে।

জঙ্গি হামলার ঘটনায় দোষীদের বিচারের পরামর্শ দেন সুষমা। তিনি বলেন, জঙ্গি হামলার পেছনে দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের মুখোমুখি করে, এ ধরনের পরিস্থিতি যেন না হয় সে ব্যবস্থা করবে বাংলাদেশের সরকার। এ ব্যাপারে তিনি আত্মবিশ্বাসী।

চিঠিতে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়ার ব্যাপারে গুরুত্ব আরোপ করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, সর্বস্তরে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় আমাদের জিরো টলারেন্স নীতি ও একটি সমন্বিত উদ্যোগ নিতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ১ জুলাই রাতে ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলা চালায় জঙ্গিরা। তারা ১৭ বিদেশীসহ ২০ জিম্মিকে হত্যা করে। এছাড়াও নিহত হন দুই পুলিশ কর্মকর্তা।

পরদিন সকালে সেখানে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কমান্ডো অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ছয় হামলাকারী নিহত হয়। এছাড়া সেখান থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয় ১৩ জিম্মিকে।

এদিকে গুলশানে হামলার এক সপ্তাহ পর গতকাল বৃহস্পতিবার ঈদুল ফিতরের দিন সকালে দেশের সর্ববৃহৎ ঈদগাহ কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতে পুলিশসহ চারজন নিহত হয়। এছাড়াও আহত হন আট পুলিশসহ অন্তত ১২ জন।

এই দুই সন্ত্রাসী হামলা ঘটনা তদন্তে ভারতের এনএসজির একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল চলতি সপ্তাহের শেষে বাংলাদেশে আসবে বলে বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানায় দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থা পিটিআই।

তবে শুক্রবার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানান বাংলাদেশে কোনও বিদেশী সংস্থা আসছে না।

Check Also

জার্মানিতে করোনার দাপট

জার্মানিতে করোনার দাপট

ফাইল ছবি: রয়টার্স Kbdnews ডেকস : করোনা সংকট থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে নানা বিধিনিষেধ দেওয়ার পাশাপাশি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *